মাথাপিছু প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষে বাংলাদেশ

ঢাকা : মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) অবদান রাখার দিক থেকে মাথাপিছু প্রবৃদ্ধিতে সব দেশকে ছাড়িয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এই সূচকে প্রথম তিন দেশের মধ্যে বাংলাদেশ একটি। গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশে মাথাপিছু প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৪৫ শতাংশ। একই হারে প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে ভারত ও চীন। জনগণের ক্রয়ক্ষমতার ওপর ভিত্তি করে এই হিসাব করা হয়েছে। তবে প্রবৃদ্ধির যে ধারাবাহিকতা, তা ধরে রাখতে পারলে অদূর ভবিষ্যতে এই দুই দেশকেও পেছনে ফেলবে বাংলাদেশ। ব্রিটিশ সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন দ্য স্পেক্টেটর বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির ওপর তাদের টুইটার অ্যাকাউন্টে গত ২ ফেব্রুয়ারি প্রকাশিত সূচকে এসব তথ্য দিয়েছে।

সূচকে বিভিন্ন দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, ইতিহাস, সামরিক বিষয়াবলি, ক্রীড়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ওপর আলোকপাত করা হয়েছে। এর একটি অংশে ভেনিজুয়েলার সঙ্গে বাংলাদেশের অর্থনীতির তুলনা করা হয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দক্ষিণ এশিয়ার ছোট এই দেশটি অর্থনৈতিকভাবে কতটা এগিয়েছে, তা তুলে ধরতেই তুলনামূলক একটি চিত্র দেওয়া হয়েছে।

দি স্পেক্টেটরের দেওয়া তথ্যানুযায়ী, ১৯৮০ সালে ভেনিজুয়েলার অর্থনীতির আকার ছিল ১১৭ বিলিয়ন ডলার। যেখানে বাংলাদেশের ছিল মাত্র ৪১ বিলিয়ন ডলার। ২৮ বছরের মাথায় এসে ২০১৮ সালে ভেনিজুয়েলার অর্থনীতির আকার দাঁড়িয়েছে ৩৩০ বিলিয়ন ডলার। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বড় সাফল্য রয়েছে। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের অর্থনীতির আকার দাঁড়িয়েছে ৭৫১ বিলিয়ন ডলার। গত পাঁচ বছরে বাংলাদেশের মতো ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে পারেনি কোনো দেশ।

সূচক অনুযায়ী মাথাপিছু প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশ, ভারত ও চীনের পর রয়েছে ইন্দোনেশিয়া। দেশটি ২৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনে সক্ষম হয়েছে। ২০ শতাংশের ওপরে আছে আর মাত্র তিনটি দেশ। নির্ধারিত এই সময়ে তুরস্ক ২৭ শতাংশ, পাকিস্তান ২৪ শতাংশ ও দক্ষিণ কোরিয়া ২২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। এরপর আছে মিসর ১৮ শতাংশ, যুক্তরাষ্ট্র ১৭ শতাংশ, জার্মানি ১৫ শতাংশ, যুক্তরাজ্য ১৫ শতাংশ, কানাডা ১৩ শতাংশ, জাপান ১৩ শতাংশ, ফ্রান্স ১২ শতাংশ, ইতালি ১২ শতাংশ, সৌদি আরব ৯ শতাংশ, রাশিয়া ৯ শতাংশ, নাইজেরিয়া ৪ শতাংশ ও ব্রাজিল মাইনাস ১ দশমিক ২ শতাংশ।

সূচকে আরও বলা হয়েছে, ১৯৯৮ সালে জিডিপির আকার ছিল ১ ট্রিলিয়ন ডলার, যা ২০১৮ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ১৪ দশমিক ১ ট্রিলিয়ন ডলার। এক পূর্বাভাসে দি স্পেক্টেটর বলেছে, ২০৫০ সালে বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির দেশ হবে চীন। তারপর থাকবে ভারত এবং যুক্তরাষ্ট্র থাকবে তিনে।