মার্চেই কোরীয় উপদ্বীপে যুদ্ধ!

ঠিকানা ডেস্ক : যত দিন যাচ্ছে ততই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে উত্তর কোরিয়া-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক। চলছে পাল্টাপাল্টি হুমকি আর শক্তি প্রদর্শনের মহড়া। আর তারই জের ধরে এবার খ্যাতনামা এক চীনা জাতীয় নিরাপত্তা বিশ্লেষক শাই ইনহোং হুশিয়ারি দিলেন, উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ অনিবার্য। অন্যদিকে আরেক সামরিক বিশ্লেষক জানান, আগামী বছরের মার্চেই এ যুদ্ধ লেগে যেতে পারে। রবিবার সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে নিউজ উইক।
চীনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সামরিক অঞ্চলের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার ওয়াং হোয়াংগুয়াং হুশিয়ারি করে বলেন, আগামী বছরের মার্চে যখন যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া যৌথ বার্ষিক সামরিক মহড়া চালাবে তখনই এ যুদ্ধ বাধতে পারে। সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘এটি খুবই ঝুঁকিপূর্ণ একটি সময়। উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় ওই যুদ্ধ প্রতিহত করতে চীনকে যথার্থ সামরিক শক্তি প্রস্তুত রাখা উচিত। ’
এছাড়া চীনের রেনমিং বিশ্ববিদ্যালয়ের আমেরিকান স্টাডিস সেন্টারের পরিচালক ইনহোং বলেন, গত কয়েক দশকে কোরীয় উপদ্বীপের যে পরিস্থিতি দাঁড়িয়ে তাতে যুদ্ধের সর্বোচ্চ ঝুঁকি তৈরি হয়েছে। তিনি বলেন, ‘উত্তর কোরিয়া একটি টাইম বোমা। আমরা শুধু বিস্ফোরণের অপেক্ষায় থাকতে পারি।
এদিকে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বরিস জনসন হুশিয়ারি দিয়ে জানিয়েছেন, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্র ব্রিটেন পর্যন্ত পৌঁছে যাবে। তিনি বলেন, আগামী ছয় মাসের মধ্যে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু অস্ত্রবাহী ক্ষেপণাস্ত্র তার দেশ পর্যন্ত পৌঁছানোর সক্ষমতা অর্জন করবে। ব্রিটেনের রক্ষণশীল দলের সংসদ সদস্যদের সঙ্গে ব্যক্তিগত বৈঠকে তিনি এ কথা বলেছেন।
উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক চাপ উপেক্ষা করেই ধারাবাহিকভাবে পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। গত সেপ্টেম্বরে ষষ্ঠ ও সবচেয়ে শক্তিশালী পরমাণু পরীক্ষা চালায় দেশটি।