মেসিকে চাপমুক্ত রাখার কৌশল আর্জেন্টিনার

ঠিকানা অনলাইন : ব্রাজিল-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের রেজাল্ট কী হতে পারে? আর্জেন্টিনার কোনো সমর্থকের কাছে প্রশ্নটি করলে হয়তো জানা উত্তরটিই মিলত; কিন্তু আর্জেন্টিনার কোচ স্কালোনি নিশ্চয়ই সেই পথে হাঁটবেন না। ‘ওই ম্যাচে কী হবে, সেটা আমি বলতে পারব না। আমি এখানে এসেছি আর্জেন্টিনার সঙ্গে নেদারল্যান্ডস ম্যাচের কথা বলতে।’ সংবাদ সম্মেলনে এভাবেই নিজেকে ধরা দেন স্কালোনি।

প্রতিপক্ষের ‘টোটাল ফুটবল’ সম্পর্কে অবহিত থেকেই ঘোষণা দেন, তাঁর দল তৈরি যে কোনো ধরনের ডাচ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার। ‘কোয়ার্টার ফাইনালের আটটি দলই বিশ্বকাপ জয়ের দাবি রাখে। এখানে এসে কে ফেভারিট- সেটা বলা যায় না। নেদারল্যান্ডস চাইবে, আমাদের আক্রমণভাগকে আটকে দিয়ে ডিফেন্স ভাঙতে। তাদের সেই শক্তি রয়েছে। তবে আমরাও তৈরি।’

বার্সার হয়ে খেলা নেদারল্যান্ডসের ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার ফ্রাঙ্ক ডি জং, ডিফেন্ডার ভার্জিন ফন ডাইক, জুরিন টিম্বারের মতো খেলোয়াড় রয়েছেন; যারা কিনা মেসিকে মার্ক করেই খেলবেন আজ। ‘মেসিকে প্রতি ম্যাচেই প্রতিপক্ষ মার্ক করে থাকে। তবে আমরাও তৈরি। আমরা সেভাবে কৌশল সাজাব, যাতে করে ম্যান মার্কিং ভাঙতে সমস্যা না হয়।’

স্কালোনির কথায় আত্মবিশ্বাসের সুর উপস্থিত আর্জেন্টাইনদের খুব বেশি আশ্বস্ত বোধ হয় করতে পারেনি। পাল্টা একটি প্রশ্ন ছিল? আর্জেন্টিনা দলের পেনাল্টি নেওয়ার পাঁচজনকে তৈরি রেখেছেন কি? উত্তরে স্কালোনির সুর খানিক চড়া। ‘আগে তো ম্যাচটি ১২০ মিনিট যেতে হবে, তারপর না হয় টাইব্রেকারের প্রশ্ন আসবে। আমরা সে পর্যন্ত ম্যাচ নিয়ে যেতে দেব না।’ বোঝাই যায়, পেনাল্টি শুটআউটে দুর্বলতা রয়েছে মেসিদের।

এমনিতে জার্মানির পরই নেদারল্যান্ডসের সঙ্গে বিশ্বকাপে সবচেয়ে বেশি পাঁচবার মুখোমুখি হতে হয়েছে আর্জেন্টিনার। যার দুটি করে জয় আর দুটিতে ড্র। ২০০৬ বিশ্বকাপেই শুধু গোলশূন্য ড্র হয়েছিল দুটি দলের। তা ছাড়া প্রতিপক্ষ শিবিরে রয়েছেন লুইস ফন গালের মতো অভিজ্ঞ কোচ, যিনি কিনা ছক বদলে খেলানোর জন্য বিখ্যাত। এই বিশ্বকাপেও ৩-৫-২ এর টোটাল ফুটবল খেলিয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্র, কাতার, সেনেগাল, ইকুয়েডর, বেলজিয়াম আর পোল্যান্ড- কারও কাছেই হারেনি নেদারল্যান্ডস। গোল পাচ্ছেন কোডি গ্যাকপো।

এই দল নিয়ে তাই সতর্ক থাকতেই হচ্ছে স্কালোনিকে। সেই সঙ্গে স্কোয়াড সাজাতেও মাথা ঘামাতে হচ্ছে একটু বেশিই। কেননা ডি মারিয়া আর ডি পলের চোটের খবর আর চাপা রাখতে পারেননি তিনি। এ দু’জনকে কি আজ শুরুর একাদশে দেখা যাবে? বারবার এই উত্তর জানতে চাচ্ছিলেন আর্জেন্টাইন সাংবাদিকরা। আর বারবারই তিনি বলছিলেন, ‘আমরা ক্লোজড ডোর অনুশীলন করেছি। সেখানে আপনারা কীভাবে জানলেন যে ওরা অনুশীলন করেনি! ওরা ফিট আছে। প্রয়োজনে অবশ্যই খেলবে।’

ডি মারিয়া ফিরলে আজ তাঁর সামনে জুলিয়ান আলভারেজ আর পাশে মেসিকে রেখেই ছক সাজাবে আর্জেন্টিনা। তবে তাদের কোচ মনে করিয়ে দিয়েছেন, ডাচ আক্রমণের সামনে ডিফেন্সও জোরালো করতে হবে।

ঠিকানা/এসআর