যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে যুদ্ধবিমানে প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী পাইলট

ঠিকানা অনলাইন: যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনী থেকে দারুণ এক খবর আসলো। ‘ব্ল্যাক লাইভ ম্যাটার’ আন্দোলনে যখন দেশটি উত্তাল ঠিক তখন এমন খবরে খুশি কৃষ্ণাঙ্গরা। দেশটির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো কৃষ্ণাঙ্গ নারী কৌশলগত যুদ্ধ বিমানের পাইলটের কোর্স সম্পন্ন করলেন।

‘ট্যাকটিক্যাল এয়ারক্রাফট’ পাইলট হিসেবে নিয়োগ পাওয়া ওই নারী হলেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল ম্যাডেলিন সুইগেল। তাকে স্বাগত জানিয়ে বিষয়টিতে ‘মেকিং হিস্টোরি’ বলে উল্লেখ করে টুইট করেছে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী।

বার্তা সংস্থা এএপি জানিয়েছে, সুইগেল চলতি সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের নেভাল এয়ার ট্রেনিং কমান্ড থেকে উড্ডয়নের সকল কোর্স সম্পন্ন করেছেন। চলতি মাসের শেষ দিকে ‘উইংস অব গোল্ড’ খেতাব গ্রহণ করবেন তিনি।

দেশটির নৌবাহীর বিমান পরিচালনা ট্রেনিংয়ের প্রধান সুইগেলের অর্জনে টুইটারে লিখেছেন- ‘প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ট্যাকটিক্যাল এয়ারক্রাফটের পাইলট হলো সুইগের। চলতি মাসের শেষ দিকে সে তার উইংস অব গোল্ড পদক গ্রহণ করবে।’

তাতে সুইগেলকে ‘বিজেট’ তথা ‘ব্রাভো জুলু’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, নৌবাহিনীতে এই টার্মের অর্থ হলো- ‘সাবাস’।

চার দশকের বেশি সময় পর যুক্তরাষ্ট্রের কোনো নারী ট্যাকটিক্যাল এয়ারক্রাফট বহরে নতুন কোনো মাইলফলক গড়লেন। এই পাইলটররা যুদ্ধে প্রতিপক্ষের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানার বিমান পরিচালনা করে থাকেন।

নেভাল হিস্ট্রি ও হেরিটেজ কমান্ড ওয়েবসাইটের তথ্যানুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম ‘উইংস অব গোল্ড’ পদকধারী পাইলট ছিলেন রসেম্যারি ব্রায়ান্ট ম্যারিনার। ১৯৭৪ সালে এই পদবি পান তিনি।

ভার্জিনিয়ার বুর্কেতে জন্ম সুইগেল ২০১৭ সালে ইউএস নেভাল অ্যাকাডেমি থেকে গ্র্যাজুয়েট সম্পন্ন করেন। তিনি বর্তমানে টেক্সাসের কিংস ভিলের ট্রেনিং স্কোয়াড্রন ২১ এর রেডহকসে নিযুক্ত আছেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।