যুক্তরাষ্ট্রের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদেশি পড়ুয়াদের সংখ্যা কমছে

ঠিকানা ডেস্ক : টানা দ্বিতীয় বছরের মত যুক্তরাষ্ট্রে কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিদেশি শিক্ষার্থীদের পড়তে যাওয়ার হার নিম্নমুখী।
বিদেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে লেখাপড়ায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসনের আরোপ করা কড়া বিধিনিষেধ এর অন্যতম কারণ বলে ধারণা করা হচ্ছে।
ইন্সটিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল এডুকেশন (আইআইই) এর বার্ষিক জরিপ অনুযায়ী, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে বিদেশি শিক্ষার্থী ভর্তির হার গত শিক্ষাবর্ষের তুলনায় ৬ দশমিক ৬ শতাংশ কমে গেছে।
এজন্য বিভিন্ন কারণের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। যার মধ্যে অন্যতম ট্রাম্প প্রশাসনের ভিসা আবেদন এবং অভিবাসন কৌশল পরিবর্তন।
অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা বলেন, ভিসা আবেদন এবং অভিবাসন প্রক্রিয়া কঠিন হয়ে পড়ায় বিদেশি শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রে পড়াশুনার আগ্রহ হারাচ্ছে।
এছাড়া, মার্কিন ডলারের মূল্যবৃদ্ধির কারণে যুক্তরাষ্ট্রের কলেজগুলোতে লেখাপড়ার খরচ অনেক বেড়ে গেছে। সেই তুলনায় কানাডা ও ইউরোপের দেশগুলোতে শিক্ষার খরচ তুলনামূলক কম হওয়ায় শিক্ষার্থীরা সেদিকে ঝুঁকছে।
গত কয়েক বছরে যুক্তরাষ্ট্রের স্কুলগুলোতে বেশ কয়েকটি বন্দুক হামলার ঘটনাও প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করেন আইআইই’র প্রেসিডেন্ট অ্যালান গুডম্যান।
তিনি বলেন, “নিরাপত্তা থেকে শুরু করে লেখাপড়ার খরচ এমনকি ভিসা কৌশলসহ সবকিছুই এখানে প্রভাব ফেলছে। শিক্ষার্থীরা এখানে আসতে চাইছে না, বিষয়টা এমন নয়। বরং তাদের কাছে এখন বেছে নেওয়ার সুযোগ আছে। তাদের অন্যান্য দেশেও একই মানের শিক্ষা পাওয়ার সুযোগ আছে।”
আমেরিকার কলেজগুলোতে তহবিলের অন্যতম উৎস বিদেশি শিক্ষার্থী। একইসঙ্গে এটি রাজস্ব আয়ের বড় উৎস, বিশেষ করে অঙ্গরাজ্যে।
বিদেশি শিক্ষার্থী কমে গেলে এসব তহবিল চাপে পড়ে যাবে।