রব-রুহুল প্যানেলের সভা অনুষ্ঠিত

ঠিকানা রিপোর্ট: আর যদি কোন আইনী জটিলতা না থাকে আগামী ২০ অক্টোবর বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। মামলার কারণে বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন এক বছর পিছিয়ে গেল। নির্বাচনের ঠিক দুই দিন আগে নয়ন- আলী প্যানেলের দুই সদস্য সোসাইটির নির্বাচনে অনিয়ম এবং তাদের মনোনয়ন পত্রের বৈধতা দাবি করে আদালতে মামলা দায়ের করেছিলেন। মাননীয় আদালত নির্বাচন স্থগিত ঘোষণা করে। শুনানী চলে দীর্ঘ দিন। মামলায় জয়লাভ করে নির্বাচন কমিশন। কিন্তু মামলাবাজরা থেমে থাকেননি। রায়ের পর বার বার মোশন দাখিল করেছিলেন। মোশনের একটি খড়গ এখনো রয়েছে। তবে নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান এডভোকেট জামাল আহমেদ জনি বলেন, আমাদের আইনজীবী মোশনের এখনো কোন কাগজ পাননি। যে কারণে মোশন সম্পর্কে আমরা অবগত নই। কাগজ পেলেই সেই অনুযায়ী কাজ করবো।
সব শঙ্কাকে সামনে রেখেই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্যানেল এবং প্রার্থীরা নির্বাচনী সভা- সমাবেশ শুরু করেছেন। রব- রুহুল প্যানেলের নির্বাচনী পরিচালনা কমিটির এক সভা গত ১৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় জ্যাকসন হাইটসের তিতাস রেস্টুরেন্টে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন এই প্যানেলের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আজিমুর রহমান বোরহান এবং পরিচালনা করেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়কারী জে. মোল্লা সানি।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রব- রুহুল প্যানেলের সভাপতি প্রার্থী আব্দুর রব মিয়া, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী রুহুল আমিন সিদ্দকী, সিনিয়র সহ সভাপতি প্রার্থী মহিউদ্দিন দেওয়ান, কোষাধ্যক্ষ প্রার্থী নওশেদ হোসেন, বৃহত্তর নোয়াখালি সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ মিন্টু, বিয়ানীবাজার সমিতির সাবেক সভাপতি মাসুদুল হক ছানু, এম বাসিত রহমান, টি মোল্লা, কুমিল্লা সোসাইটির সভাপতি কাজী আমিনুল ইসলাম চৌধুরী, মোহাম্ম জাহাঙ্গীর, সরোয়ার মোল্লা, শুশাঙ্ক, আজাদ বাকির, কামাল ভুইয়া, শাপলা ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েটসের সাবেক সভাপতি নূরুল হাসান প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, মামলাবাজদের কারণে বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন প্রায় এক বছর পিছিয়ে গেল। মামলার জন্য বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন কমিশনকে ব্যাপক অর্থ গচ্চা দিতে হয়েছে। যারা মামলা করেছেন তারা নিজেরাও জানে এই মামলার কোন ভিত্তি নেই। নিজেরাই মনোনয়ন পত্র ভুল করেছিলো। যে কারণে নির্বাচন কমিশন বাছাই’র সময় অসম্পূর্ণ দুটো মনোনয়ন পত্র বাতিল করে। যার খেসারত দিতে হচ্ছে বাংলাদেশ সোসাইটি এবং আমাদের। তারা মামলাবাজদের আগামী নির্বাচনে প্রতিহত করার আহবান জানান।