রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে স্পিকারের সাক্ষাৎ চেয়েছেন সিইসি

ছবি সংগৃহীত

ঠিকানা অনলাইন : রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পক্ষ থেকে স্পিকারের সাক্ষাৎ চাওয়া হয়েছে। ২২ জানুয়ারি রোববার এ ব্যাপারে ইসি সচিবালয়ের পক্ষ থেকে সংসদ সচিবালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। এ সপ্তাহের মধ্যেই স্পিকারের সঙ্গে সিইসির সাক্ষাৎ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে।

এ বিষয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘সিইসির সাক্ষাতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের বিস্তারিত শিডিউল নিয়ে আলোচনা হবে। যেদিন ভোটের তারিখ হবে, ওই দিন একটি বৈঠকের সময় ঠিক করা হবে। ওই বৈঠকে নির্বাচনী কর্তা (সিইসি) সভাপতিত্ব করবেন। যদি রাষ্ট্রপতি পদে একাধিক প্রার্থী থাকেন, তাহলেই কেবল ওই বৈঠকটি বসার প্রয়োজন পড়বে। আর একক প্রার্থী হলে সেটার দরকার হবে না। নির্বাচন কমিশন আইন অনুযায়ী একক প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করবে।’

জানা গেছে, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য সংসদের অধিবেশন বাড়ানোর প্রয়োজন পড়বে না। ফলে পূর্বঘোষণা অনুযায়ী ৯ ফেব্রুয়ারিই শেষ হবে এই অধিবেশন।

এ প্রসঙ্গে আইনের উদ্ধৃতি দিয়ে স্পিকার বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য কোনো অধিবেশনের প্রয়োজন পড়বে না। কেবল সংসদের একটি বৈঠকের প্রয়োজন পড়বে।’

এর আগে রোববার দুপুরে নির্বাচন কমিশন সচিব জাহাঙ্গীর আলম রাষ্ট্রপতি নির্বাচন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের বলেন, ‘আইনের বাধ্যবাধকতার কারণে ২৩ জানুয়ারি থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। সে ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন তার প্রস্তুতি শুরু করেছে। স্পিকারের সাথে সাক্ষাতের জন্য আমরা সংসদ সচিবালয়ের সাথে যোগাযোগ করছি।’

আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে তিনি জানান, আইনটি হচ্ছে রাষ্ট্রপতির মেয়াদ শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হবে। অবশ্যই ৬০ দিনের আগে। ৯০ দিনের হিসাব শুরু হবে ২৪ এপ্রিল থেকে (পূর্ববর্তী) ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত। সে হিসেবে ২৩ জানুয়ারি থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে শেষ করতে হবে।

ঠিকানা/এনআই