র‌্যাগিংয়ের দায়ে ববিপ্রবির ছয় শিক্ষার্থী বহিষ্কার

গোপালগঞ্জ : র‌্যাগিংয়ের দায়ে ছয় শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করেছে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ববিপ্রবি) কর্তৃপক্ষ। গত ৪ ফেব্রুয়ারি দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়াল বোর্ড জরুরি সভা করে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বহিষ্কৃতরা হলেন, ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী শিপন আহম্মেদ, শাহীন মিয়া, হৃদয় কুমার ধর, ত‚র্যয় হাওলাদার, নাদিম ইসলাম ও আশিকুজ্জামান খান লিমন।

জানা যায়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি বিভাগের প্রথম বর্ষের ছাত্র মো. রাজেশ হোসাইন শিথিল ও মাহামুদুল হাসান নামে দুই শিক্ষার্থীকে গত ২ ফেব্রæয়ারি রাতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের বাইরে গোবরা গ্রামের একটি মেসে নিয়ে ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছয় শিক্ষার্থী র‌্যাগিং করে। র‌্যাগিংয়ের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম (ফেসবুকে) ছেড়ে দেওয়া হয়। যা পরবর্তী সময় ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্রুত র‌্যাগিং বন্ধের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানান।এ ঘটনার পর গত ৪ ফেব্রুয়ারি দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের হল রুমে প্রক্টর ও সহযোগী আধ্যাপক আশিকুজ্জামান ভূঁইয়ার নেতৃত্বে ১৬ সদস্যের একটি প্রক্টোরিয়াল বোর্ড জরুরি সভায় বসে। সভায় ইলেকট্রিকাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অভিযুক্ত ছয় শিক্ষার্থীকে আজীবনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার এবং তাদের বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ দিকে ছয় শিক্ষার্থীকে বহিষ্কারের ঘটনায় সুষ্ঠু বিচার পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন র‌্যাগিংয়ের শিকার হওয়া শিক্ষার্থী শিথিল।