শেফ খলিলুর রহমানের সম্মানজনক ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড লাভ

ঠিকানা রিপোর্ট : নিউইয়র্কে বাংলাদেশি আমেরিকান শেফ খলিলুর রহমান ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড-২০২২ পেয়েছেন। যুক্তরাজ্যের বাইরে এই প্রথম কোনো কোনো শেফ এই অ্যাওয়ার্ড লাভ করলেন। স্থানীয় সময় ২৮ নভেম্বর সোমবার সন্ধ্যায় দ্য এভালুশন লন্ডনে’ জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দুই সহস্রাধিক আমন্ত্রিত অতিথির উপস্থিতিতে শেফ খলিলের হাতে অ্যাওয়ার্ডটি তুলে দেন ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডের প্রতিষ্ঠাতা মরহুম এনাম আলীর ছেলে জেফরি আলী।
উল্লেখ্য, শেফ খলিলুর রহমান চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাইডেনের অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

শেফ খলিলুর রহমানের সাথে নিউইয়র্কের সাংবাদিক হাবিব রহমান।

ব্যস্ততার কারণে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে না পেরে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক রেকর্ডেড বক্তব্য পাঠান, যা উপস্থিত অতিথিদের শোনানো হয়।
লন্ডনে খলিলুর রহমানের সফরসঙ্গী ও তার ঘনিষ্ঠ বন্ধু সিনিয়র সাংবাদিক হাবিব রহমান ঠিকানাকে জানান, ব্রিটিশ কারি ইন্ডাস্ট্রির ইতিহাসে সবচেয়ে জমকালো, বর্ণাঢ্য এবং বৃহৎ আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় এই ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড। অনুষ্ঠানে লন্ডনে বাংলাদেশের হাই কমিশনার সাঈদা মুনা তাসনিম এবং বেশ কয়েকজন ব্রিটিশ সেলিব্রেটি উপস্থিত ছিলেন।
কারি ইন্ডাস্ট্রির অস্কার খ্যাত এই ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডের সূচনা হয়েছিলো এনাম আলীর হাত দিয়ে অভিজাত হোটেল গ্রোজভেনার হাউসে ২০০৫ সালে। জমকালো বর্ণাঢ্য আয়োজন, সেলিব্রেটি ব্যক্তিত্ব, ব্রিটিশ রাজনীতি এবং ব্যবসার প্রভাবশালীদের উপস্থিতি আলাদা একটি স্থানে নিয়ে গেছে ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডকে। এতে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন, লেবার লিডার, হোম সেক্রেটারি উপস্থিত হয়েছেন একাধিকবার। মন্ত্রী, এমপি, মেইনস্ট্রিম মিডিয়ার প্রভাবশালী সম্পাদক, সাংবাদিক, ডিরেক্টররা এবং কমিউনিটি মিডিয়া ও সমাজের বিশিষ্টজনের উপস্থিতিও ছিল নিয়মিত।
লিজেন্ডারি সাংবাদিক ট্রাভেল ম্যাকডোনাল্ড থেকে শুরু করে হু ওয়ান্ট টু বি এ মিলিয়নিয়ার খ্যাত ক্রিস টারেনসহ সেরা সেলিব্রেটিরা থেকেছেন অনুষ্ঠানের উপস্থাপনায়। ব্রিটিশ ক্যালেন্ডারের অন্যতম সেরা ইভেন্ট হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে এই আয়োজন। এ বছর মার্চ মাসে এনাম আলী মৃত্যুবরণ করেন। এবারের অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে তাকে সবাই খুব অনুভব করেন।
ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড চালু হবার পর থেকে বিশ্বমানের এই অনুষ্ঠানটি প্রযোজনার দায়িত্বে রয়েছেন এনাম আলী এমবিইর এর সুযোগ্য কন্যা জাস্টিন আলী। সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছেন এনাম আলীর যোগ্য উত্তরসূরী তাঁর ছেলে জেফরি আলী।

লন্ডনে ক্যারি অ্যাওয়ার্ডে সপরিবারে শেফ খলিলুর রহমান।


অনুষ্ঠানে শেফ খলিলের ব্যবসায়িক কর্মকাণ্ডের একটি ভিডিও প্রদর্শন করা হয়।
অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের প্রবর্তক মরহুম এনাম আলী স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠান উপলক্ষে একটি সুদৃশ্য স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়। আমন্ত্রিত অতিথিদের সকলকে ব্লাক টাই ডিনারে আপ্যায়ন করা হয়।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশি আমেরিকান শেফ খলিলুর রহমান নিউইয়র্কে বাংলাদেশি প্রসিদ্ধ খাবার খলিল ফুডসের কর্ণধার।