শ্রাবন্তী তাহসান নাকি তাসকিনের?

২০১৬ সালে বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনার ‘শিকারি’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন কলকাতার সুপারস্টার নায়িকা শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। সে ছবিতে শ্রাবন্তীর নায়ক ছিলেন বাংলাদেশি সুপারস্টার শাকিব খান। এর পর কেটে গেছে এক বছরেও বেশি সময়। দীর্ঘ এ সময় পরে আবারও বাংলাদেশি নায়কের সঙ্গে অভিনয় করতে আসছেন কলকাতার মিষ্টি চেহারার নায়িকা শ্রাবন্তী।
তবে এবার আর যৌথ প্রযোজনার ছবিতে নয়। পুরোপুরি বাংলাদেশি ছবিতেই অভিনয় করবেন শ্রাবন্তী। ছবির নাম ‘যদি একদিন’। ছবিটির পরিচালনার চেয়ারে আছেন মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ। ছবিতে শ্রাবন্তীর বিপরীতে নায়ক আছেন দুজন। সঙ্গীতশিল্পী ও অভিনেতা তাহসান রহমান খান এবং ‘ঢাকা অ্যাটাক’ ছবিতে খলচরিত্রে অভিনয় করে নজরকাড়া তাসকিন রহমান।
তবে সমস্যা হচ্ছে, শ্রাবন্তীর নায়ক তাহসান নাকি তাসকিন- এ বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছুই জানাননি পরিচালক মোস্তফা কামাল রাজ। এ ব্যাপারে রাজের রহস্যময় উত্তর হচ্ছে, ‘হয়তো দুজনই শ্রাবন্তীর নায়ক। আবার হয়তো না।’ তবে নায়ক যে-ই হোক, দুই বাংলার মিলবন্ধনে ‘যদি একদিন’ যে জমে ক্ষীর হবে সেটা অনুমান করাই যায়। তার পর সেটা যদি হয় তিন তারকার ত্রিভূজ প্রেমের গল্প, তাহলে তো কথাই নেই।
ছবিটিতে অভিনয়ের জন্য ইতিমধ্যেই চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন নায়িকা শ্রাবন্তী। ‘যদি একদিন’ এ শ্রাবন্তীকে দেখা যাবে ‘অরিত্রী’ চরিত্রে। এ ব্যাপারে নির্মাতা রাজের ভাষ্য, ‘অরিত্রী’ চরিত্রটির যেমন অভিনেত্রী দরকার, শ্রাবন্তীর মধ্যে সেসব গুণই রয়েছে। অনেক ভেবেচিন্তে চিত্রনাট্য অনুযায়ী তাকে নির্বাচন করা হয়েছে। ছবিটা পর্দায় এলেই বোঝা যাবে শ্রাবন্তীই এ চরিত্রের জন্য মানানসই।’
অন্যদিকে, ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে অভিনেত্রী শ্রাবন্তী বলেন, ‘পরিচালক রাজের সঙ্গে কথা বলে খুব ভালো লেগেছে। তিনি আমাকে চমৎকারভাবে ছবির গল্প শুনিয়েছেন। খুচ ভালো লেগেছে। আশা করছি, দারুণ একটা কাজ হতে যাচ্ছে।’তাছাড়া শ্রাবন্তীর পূর্বপুরষের বাড়ি বরিশালে। তাই বাংলাদেশের প্রতি তার আলাদা একটা টান রয়েছে বলেও তিনি জানান।
মোস্তফা কামাল রাজের পরিচালনায় ‘যদি একদিন’ প্রযোজনা করছে বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের চ্যানেল আরটিভি। নির্মাতা রাজের সঙ্গে যৌথভাবে ছবিটির চিত্রনাট্য লিখেছেন আসাদ জামান। ‘যদি একদিন’ নির্মাতা রাজের পঞ্চম ছবি। এর আগে ‘প্রজাপতি’, ‘ছায়া-ছবি’, ‘তারকাঁটা’ ও ‘সম্রাট’ ছবি চারটি পরিচালনা করেছিলেন তিনি।