সাবওয়ে লিফটগুলোর বেহালদশা

ঠিকানা রিপোর্ট: নিউ ইয়র্ক সিটির সাবওয়ে কারগুলোর উল্লেখযোগ্য অংশই বর্তমানে হোমলেসদের ( বাস্তুহারাদের) দখলে। লটবহরসহ বাস্তুহারারা কারগুলোর অধিকাংশই নিজেদের নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং পায়খানা ও প্র¯্রাবের দুর্গন্ধে যাত্রীসাধারণের ত্রাহি মধুসূদন দশা। এছাড়া সাবওয়ে এলিভেটরগুলোর দুর্গন্ধেও যাত্রীদের বমি আসার উপক্রম হয়। হান্টার কলেজ শিক্ষার্থীদের এক জরিপ প্রতিবেদন থেকে ২৬ জানুয়ারি এই বিব্রতকর তথ্য প্রকাশিত হয়েছে।
শিক্ষার্থী গবেষকগণ ৬৪টি স্টেশনের এভিভেটরগুলো সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ করেন এবং ৩৬% এলিভেটর থেকে দুর্গন্ধ ছড়ানো এবং ৬% এলিভেটর থেকে তীব্র দুর্গন্ধ নির্গমন লক্ষ করেন। আর দুর্গন্ধের মত প্র¯্রাবের দুর্গন্ধই সুস্পষ্টভাবে উপলব্ধি করা গেছে। পর্যবেক্ষণে সাহায্যকারী সোসিয়োলজির অধ্যাপক পিটার টাকেল বলেন, এলিভেটরগুলো ¯িœফ পরীক্ষায় পাশ করেনি। এক-তৃতীয়াংশ এলিভেটরই ময়লাযুক্ত। হান্টারের সাথে গবেষণায় অংশ নেয়া ট্রাঞ্জিটসেন্টারের কলিন রাইট বলেন, কার এবং এলিভেটরের ব্যাপারে মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্ট অথরিটির আরও মনোযোগী এবং দায়িত্বশীল হওয়া উচিত।
অধ্যাপক টাকেল বলেন, ৪৭২টি সাবওয়ে স্টেশনের মধ্যে মাত্র এক-চতুর্থাংশে হ্যান্ডিক্যাপড ( শারীরিক সমস্যাযুক্তদের) সহজে প্রবেশের সুযোগ রয়েছে। তিনি বলেন, শারীরিক পঙ্গু নিউ ইয়র্কবাসীদের অনেকেরই এমটিএর অ্যাকসেস-এ-রাইড কর্মসূচির উপর নির্ভর করার তীব্র প্রয়োজন রয়েছে। অথচ কর্মসূচিটি নির্ভরযোগ্য নয় এবং অতিমাত্রায় ব্যয়বহুল।
সম্প্রতি মেট্রোপলিটন ট্রান্সপোর্টেশন অথরিটি ১০০টি স্টেশনকে তকতকে-ঝকঝকে করে পরিচ্ছন্ন করার জন্য প্রাইভেট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বলে জানা গেছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সরেজমিনে পর্যবেক্ষণ পরিচালনা করা হয়েছে। সাবওয়ে অ্যাকশন প্ল্যানের অধীনে ৫০ জন অতিরিক্ত স্টেশন পরিচ্ছন্নকারী স্টেশনগুলোর পরিচ্ছন্নতায় নিয়োজিত থাকবে বলে জানা গেছে। এমটিএর মুখপাত্র স্যামস তারেক জানান, নতুন গ্রুপ স্টেশন ম্যানেজার প্রোগ্রামের আওতায় এলিভেটরসহ সাবওয়ে পরিবেশের উন্নতি বিধানে বিশেষ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।