সাম্রাজ্য ও সাপুড়ের প্রেক্ষাগৃহ

মোহসিনা জামান :

কারণ তোমার সাম্রাজ্য চাই;
চাই একজন ঘনিষ্ঠ চেচেন মিত্র।
ম্যানিকিউর করানো লম্বা লম্বা নখ,
রং করা নখরযুক্ত স্বর্ণকেশীরা থাকলেও
রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের বরাত,
এবং মুখপাত্রের বয়ানে চাই
অনুবীক্ষণ, নাগিন ও দুরবিন।
কারণ নীহারিকার বিরুদ্ধে জোট বেঁধেছে মন্বন্তর;
কারণ এগারো শ শহরের নেমে যাওয়া তাপমাত্রার পর,
সামরিক প্রেমঘর ও প্রজাতন্ত্রে ঘটছে রূপান্তর।
তুমি চাইলেই কিনতে পারো একটা জাদুঘর,
কিনতে পারো মস্কোভা নদীর উৎসের মতো
হেঁটে যাওয়া ষোড়শী নারীর চোখ, নাক, মুখ,
ফিরে যেতে পারো ওই পুরাতন প্রাসাদে,
ওই ঝাড়বাতি দোলা ঘরে,
লাল-লাল, নীল-নীল নর্তকী বুকে
চাইলেই পেতে পারো অজস্র সুখ;
কারণ সওদাগরের মেয়ে জাদুবিদ্যায় পারদর্শী খুব।
নামী সওদাগর একটা ঘাসফুল জলসায়
কিন্তু এই পৃথিবীর শনিবারের শুক-শাড়ি জীবনেও
থাকতে পারে খাঁদ, থাকতে পারে কোহিনুর ফেরানোর দাবি।
প্রেতাত্মা, মক্ষীকা, বিশ্বাসঘাতকতার সাম্রাজ্যে
যুদ্ধের প্রশিক্ষণ থাকলেও প্রচলিত উপকথায়
থাকতে পারে হত্যার যথেষ্ট উপত্যকাÑ
প্রাচীনতম পারস্য শাস্তির
স্ক্যাফিজম পদ্ধতিতে দণ্ডিত হতে পারে
অপ্রস্তুত এক একটা সৈনিকের শরীর।
পারস্য নৌযাত্রায় ওডেসার মানচিত্র
দেখে দেখে সমস্ত কুমারীরা ডুবে যাবে
ডুবে যাবে প্রাসাদের ছাদ, সাদা চাঁদ ও ক্রেমলিন।
খোয়া শহরের কাছের একটি গ্রামে তবুও
বাঞ্ছারাম সাপুড়ের প্রেক্ষাগৃহে চলবে তোমার-
ছোবল ছোবল খেলা।
কারণ তোমার সাম্রাজ্য চাই, সাম্রাজ্য।