সিরিয়ায় ফের হামলা হলে বিশ্বে গোলমাল বেধে যাবে : পুতিন

বিশ্বচরাচর ডেস্ক : সিরিয়ায় আরেকবার পশ্চিমারা হামলা চালালে বিশ্বজুড়ে গোলমাল বেধে যাবে বলে সতর্ক করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। বাশার আল-আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে বেসামরিক নাগরিকদের ওপর রাসায়নিক হামলার অভিযোগে সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্সের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর দিন এ হুমকি দিলেন তিনি। গত ১৫ এপ্রিল ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে টেলিফোন আলাপে এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট। রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের দাফতরিক ভবন ক্রেমলিন এক বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছে। খবর রয়টার্স ও এবিসির।
ক্রেমলিনের বিবৃতিতে বলা হয়, পশ্চিমাদের এ হামলা সিরিয়ায় গত সাত বছর ধরে চলমান গৃহযুদ্ধের অবসানে রাজনৈতিক সমঝোতায় পৌঁছানোর সম্ভাবনাকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে বলে পুতিন ও রুহানি একমত হয়েছেন। পুতিন বিশেষভাবে জোর দিয়েছেন যে, জাতিসংঘ সনদের লঙ্ঘন করে এ ধরনের পদক্ষেপ যদি অব্যাহত থাকে তাহলে অবশ্যই তা আন্তর্জাতিক পরিসরে গোলযোগ তৈরি করবে।
বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত সর্বশেষ এলাকা দৌমায় অভিযানের মধ্যে গত সপ্তাহে রাসায়নিক হামলায় ৭০ জনের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হন। এ জন্য বাশার সরকারকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা হামলায় নতুন চেহারা দেখিয়েছে। গত ১৪ এপ্রিল ভোরে একযোগে সিরিয়ার রাসায়নিক স্থাপনাগুলোয় হামলা চালিয়ে সেগুলো গুঁড়িয়ে দেয়ার দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স।
ওয়াশিংটন বলছে, দৌমায় রাসায়নিক হামলার জবাবে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র কর্মসূচির প্রাণকেন্দ্রে ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছে। হামলায় অংশ নেয়া তিন দেশই দাবি করেছে, তাদের এ হামলার পেছনে আসাদকে উৎখাত বা দেশটির গৃহযুদ্ধে হস্তক্ষেপের অভিপ্রায় ছিল না। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষেপণাস্ত্র হামলা সফল হয়েছে বলে প্রশংসাসূচক টুইট করেছেন। একে আগ্রাসন আখ্যা দিয়ে এর নিন্দা জানিয়েছে দামেস্ক ও তার মিত্ররা। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ এ হামলাকে ‘অগ্রহণযোগ্য ও বেআইনি’ অ্যাখ্যা দিয়েছেন।
গত ১৫ এপ্রিল পুতিনের এ সতর্কবার্তা আসার কিছুক্ষণ আগেই রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেন, পশ্চিমাদের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে সব প্রচেষ্টা নেবে মস্কো। পশ্চিমা দেশগুলো জাতিসংঘে যে প্রস্তাব তুলছে তার সঙ্গে রাশিয়া কাজ করবে কি না সে প্রশ্নের জবাবে তিনি তাস বার্তা সংস্থাকে বলেন, ‘এখন রাজনৈতিক পরিস্থিতি খবুই উত্তেজনাপূর্ণ, খুবই উত্তপ্ত। তাই আমি এ বিষয়ে কিছু বলব না। বর্তমানের অশান্ত পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে সব সুযোগ ব্যবহার করে আমরা শান্তভাবে ও পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করব।’
এ দিকে দামেস্কে রাসায়নিক অস্ত্র নিরোধ আন্তর্জাতিক সংস্থার (ওপিসিডব্লিউ) পরিদর্শকদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন সিরিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল মেকদাদ। রাশিয়া ও সিরিয়ার জ্যেষ্ঠ নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে তিন ঘণ্টার ওই বৈঠক হয়।
ওয়াশিংটন যুদ্ধ চায় না : সিরিয়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুদ্ধ চান না বলে দাবি করেছেন জাতিসংঘে নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি। তিনি বলেন, সিরিয়া নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র তিনটি লক্ষ্যে কাজ করছে। ট্রাম্প কখনোই যুদ্ধ চান না। সিবিএসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেনÑ প্রথমত, প্রেসিডেন্ট স্পষ্ট করেছেন যেকোনো ধরনের রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার সহ্য করা হবে না। মার্কিন স্বার্থে আঘাত লাগে এমন কিছুই হতে দেবে না যুক্তরাষ্ট্র। দ্বিতীয়ত, তারা চান সিরিয়ায় সম্পূর্ণভাবে আইএস নির্মূল হোক। পুরোপুরি আইএসমুক্ত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র নিশ্চিত করতে চায় যেন কোনো ইরানি প্রভাব না থাকে। নিকি হ্যালি বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কখনোই যুদ্ধ চান না। মানুষ হত্যা করতে চান না। মার্কিনিরা কখনও এভাবে চিন্তা করেন না।’
যুক্তরাষ্ট্রকে জবাব দিতে দেরি হবে না : যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিষেধাজ্ঞার জবাব দিতে কোনো ধরনের বিলম্ব করা হবে না বলে জানিয়েছে রাশিয়া। গত ১৬ এপ্রিল দেশটির উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ এ মন্তব্য করেন। রুশ সংবাদ সংস্থা আরআইএ জানায়, রাশিয়ার পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের জ্যেষ্ঠ সদস্যরা বলেছেন, তারা যুক্তরাষ্ট্রের আমদানিকৃত কিছু পণ্য নিষিদ্ধ বা আমদানিতে কড়াকড়ি আরোপ করতে ক্রেমলিনকে ক্ষমতা দেয়ার কথা ভাবছেন। এ জন্য একটি আইন পাসের কথা বিবেচনা করা হচ্ছে। রিয়াবকভ বলেন, ‘বৈশ্বিক রিজার্ভ মুদ্রা ওয়াশিংটনের ডলারের অপব্যবহার সম্পর্কে মস্কো আলোচনা করছে।’