সিসিকের ভেতর না বাইরে

প্রণবকান্তি দেব : পাঠক, সময়টা ভালো না। যে যেখানে আছি সবখানে, বাতাসে কেবল মৃত্যুর খবর, বিষাদভরা দিন। জীবন তবু থেমে থাকে না। এগিয়ে যাওয়ার প্রতিযোগিতা চলে স্বাভাবিক নিয়মে। বন্ধুগণ, সিলেটে এখন আলোচনার টেবিল সরগরম সিটি করপোরেশরে সীমানা বৃদ্ধি নিয়ে। কেউ চাইছেন সিটির ভেতরে আসতে, আবার কেউ চাইছেন বাইরে থাকতে। যুক্তিতর্কে সবাই যার যার জায়গায় অনড়। অতি সম্প্রতি সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) পরিধি বাড়ানোর জন্য গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে সিলেট জেলা প্রশাসন। এই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরই দেখা দিয়েছে নানামুখী অসন্তোষ। অনেক এলাকা সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার দাবি জানিয়েছে। আবার কিছু এলাকা সিটি করপোরেশনের বাইরে থাকতে আন্দোলনে নেমেছে। এসব দাবিতে প্রায় প্রতিদিনই মানববন্ধন, সংবাদ সম্মেলন, সভা-সমাবেশ কিংবা স্মারকলিপি প্রদানের ঘটনা ঘটছে।
গত ৯ আগস্ট সিসিক সম্প্রসারণের উদ্যোগের অংশ হিসেবে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে সিলেট জেলা প্রশাসন। বর্তমানে ২৬ বর্গকিলোমিটার আয়তনের সিসিককে প্রায় ৫৭ বর্গকিলোমিটারে রূপান্তরের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৯ আগস্ট সিলেট সিটি করপোরেশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. একে আব্দুল মোমেনও বলেন, সিলেট নগরের আয়তন আট গুণ বাড়ানো উচিত। এদিকে, প্রকাশিত গণবিজ্ঞপ্তিতে সিটি করপোরেশনের আয়তন মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী বর্ধিত না হওয়ার কথা জানিয়েছেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও। গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি জানিয়েছিলেন, গেজেটেড মাস্টারপ্ল্যানে সিসিককে সম্প্রসারণ করে ৮৫.১৫ বর্গকিলোমিটারে উন্নিত করার নির্দেশনা রয়েছে।
অপরদিকে, গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরই নগরের আশপাশের অনেক এলাকায় ক্ষোভ দেখা দেয়। দক্ষিণ সুরমার কুচাই ইউনিয়নসহ কয়েকটি ইউনিয়ন ও সদরের কয়েকটি ইউনিয়ন সিটির আওতায় আসতে ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসন, সিটি করপোরেশনসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরসমূহে স্মারকলিপি প্রদান করেছে। আবার সদর উপজেলার খাদিম নগর ইউনিয়নসহ কিছু কিছু এলাকা সিসিকের আওতার বাইরে থাকতে বিক্ষোভ করেছে।
গণবিজ্ঞপ্তিতে সদর উপজেলার ৪ নম্বর খাদিমপাড়া ইউনিয়নকে সিলেট সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভূক্তের প্রাথমিক সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। তবে এই ইউনিয়নের বাসিন্দাদের অনেকে সিটির অন্তর্ভুক্ত না হতে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর থেকেই বিক্ষোভ করে আসছেন। অন্যদিকে, সিলেট সদর উপজেলার টুকেরবাজার ইউনিয়নের টুকেরগাঁও, গৌরিপুর ও নোয়াগাঁওকে সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন এলাকাবাসী।
এদিকে, গণবিজ্ঞপ্তিতে দক্ষিণ সুরমার কুচাই ইউনিয়নের কিছু এলাকাকে সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত করা হয়েছে। বাদ পড়ে গেছে ইউনিয়নের ৬টি মৌজা। এই ৬ মৌজাকেও সিসিকের অন্তর্ভুক্ত করার দাবিতে গত ৩০ আগস্ট জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন স্থানীয় এলাকাবাসী
তবে, সুধীমহল মনে করছেন পর্যাপ্ত নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করেই আয়তন বাড়ানো উচিত। অনেকের অভিযোগ, বর্তমানে সিটি করপোরেশনের নাগরিকরাই যথাযথ সুবিধা পাচ্ছেন না। রাস্তাঘাট, বিশুদ্ধ পানি সংকট, জলাবদ্ধতাসহ নানা সংকটে ভুগছেন নগরবাসী।
উল্লেখ্য, ২০০২ সালে সিলেট পৌরসভা থেকে উন্নীত হয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনে রূপলাভ করে। প্রথম ধাপে ২৬.৫ বর্গকিলোমিটার আয়তন নিয়ে যাত্রা শুরু করে সিলেট সিটি করপোরেশন। গণবিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত এলাকাগুলো যুক্ত হলে সিসিকের আয়তন বেড়ে দাঁড়াবে প্রায় ৫৮ বর্গকিলোমিটার।
প্রিয় পাঠক, সুস্থ থাকুন, নিরাপদ থাকুন সবাইকে নিয়ে। ঠিকানার সাথেই থাকুন।