সৌরভে সুবিধা দেখছে বিসিবি

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন ‘কলকাতার মহারাজ’ সৌরভ গাঙ্গুলি। এখন কেবল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি। বাংলার ছেলে সৌরভের গোটা ভারত ক্রিকেটের অভিভাবক হওয়ার বিষয়টি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) আনন্দিত করেছে। যেকোনো বিষয়ে সৌরভের সঙ্গে আলাপে স্বাচ্ছন্দ্য থাকবে। বিশেষ করে এত দিনেও প্রাপ্য ভারত সফর বাংলাদেশ যে পেল না তার একটা সমাধানের আশা তো বিসিবি করতেই পারে। কিছুদিন পর সৌরভকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ করার পরিকল্পনা আছে বিসিবির। গত ১৪ অক্টোবর মুম্বাইয়ে যখন ভারত অধিনায়ক সৌরভের বিসিসিআই সভাপতি হওয়ার কাজটা শেষের পথে তখন মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বিসিবির পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। এমনিতে ভারত বোর্ডের সঙ্গে বিসিবির সম্পর্ক ভালো। তার ওপর খুব চেনা সৌরভ এবার সেই মহাক্ষমতাশালী বোর্ডের প্রেসিডেন্ট। জালাল প্রতিক্রিয়ায় জানালেন, ‘বিসিসিআইয়ের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক ভালো। সৌরভ গাঙ্গুলি একজন বাঙালি, সাবেক ক্রিকেটার। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই একটা বাড়তি সুবিধা আমরা পাব। যেকোনো ইস্যু নিয়ে তার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করতে স্বাচ্ছন্দ্য অনুভব করব।’ বাংলাদেশ সম্পর্কে সৌরভের অনুভূতি খুব চমৎকার। ভালো লাগা আছে খুব। এই দেশে সফর করতে, খেলতে পছন্দ করতেন। অনেকবার এসেছেন। খেলেছেন। অবসরের পরও এসেছেন। নানা ভূমিকায়। বাংলাদেশের অনেক ক্রিকেটার-কর্মকর্তার সঙ্গে তার ব্যক্তিগত পর্যায়ের সম্পর্ক আছে। ২০০০ এর নভেম্বরে ঢাকায় বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টের প্রতিপক্ষ ভারত দলের অধিনায়ক ছিলেন সৌরভ।


এ রকম প্রসঙ্গ টেনে জালাল বলছিলেন, ‘এখানে আমাদের অনেকের সঙ্গে তার (সৌরভ) ব্যক্তিগত সম্পর্ক আছে। বাংলাদেশে অনেকবার খেলে গেছেন। তিনি খুবই তরুণ। আমাদের এখানে অনেকের সঙ্গে তার আত্মার সম্পর্ক আছে ব্যক্তিগতভাবে। এগুলো অবশ্যই কাজে লাগবে।’


বোর্ড পরিচালক জালালের আশা এবার ভারতের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় ক্রিকেটের দেনা-পাওনা মেটানো সহজ হবে, ‘ভারত থেকে আমরা যে সিরিজগুলো আগে পাইনি, দ্বিপক্ষীয় বা জুনিয়র পর্যায়ের ম্যাচ, সেগুলো নিয়ে তার সঙ্গে খুব খোলামেলা আলাপ করতে পারব। এই সুযোগ অবশ্যই আছে।’ প্রসঙ্গত, টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার ২০ বছরের মাথায় এই প্রথম ভারতে দুই সিরিজের সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ। নভেম্বরে দেশটিতে সাকিব আল হাসানের দল খেলবে তিনটি টি-২০ এবং দুটি টেস্টের সিরিজ।
গত ১৪ অক্টোবর একমাত্র সভাপতি প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেওয়ায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন সৌরভ। তবে ২৩ তারিখ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট। বোর্ড সভাপতি হিসেবে এই দফায় সৌরভ কাজ করার সময় পাবেন ১০ মাস। তবে এর মধ্যেই তাকে বাংলাদেশে আমন্ত্রণ জানানোর আগ্রহ বিসিবির। ‘(তিনি) দায়িত্ব নিচ্ছেন মাত্রই। আরও কিছুদিন যাক।’ জালাল জানালেন, ‘এরপর আমাদের মাননীয় বোর্ড সভাপতি তার সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে অবশ্যই দেখা করবেন। তখন আমরা বুঝতে পারব তাকে কখন আবার আমন্ত্রণ করে আনতে পারি।’