৬ জুলাই মোর্শেদ আলম ডে পালন করা হবে : গ্রেস মেং

ঠিকানা রিপোর্ট : প্রবীণ ডেমোক্রেট নেতা, নিউ অ্যামেরিকান ডেমোক্রেটিক ক্লাবের প্রেসিডেন্ট মোর্শেদ আলমের সম্মানে কুইন্সের কংগ্রেসনাল ডিস্ট্রিক্ট-৬-এ প্রতিবছর ৬ জুলাই ‘মোর্শেদ আলম ডে’ পালন করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন কংগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং। আর এর মধ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কোনো বাংলাদেশি আমেরিকানের সম্মানে একটি দিবস পালনের ঘোষণা করা হল।
গত ৬ জুলাই বুধবার জ্যামাইকার তাজমহল রেস্টুরেন্টে যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি আমেরিকানদের মুলধারার রাজনীতির পথিকৃৎ মোর্শেদ আলমের মুলধারার রাজনীতিতে ৩০ বছর উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কমগ্রেসওম্যান গ্রেস মেং এ ঘোষণা দেন। গ্রেস মেং যখন এই ঘোষণা দেন তখন হলভর্তি দর্শক-শ্রোতা করতালির মাধ্যমে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে গ্রেস মেং বলেন, মোর্শেদ আলম শুধু দক্ষিণ এশিয়ার আমেরিকান নেতা নন, তিনি এশিয়ান আমেরিকান নেতা। তিনি এশিয়ানদের অধিকার আদায়ে নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। তিনি বলেন, মোর্শেদ আলম তৃণমুল সম্পর্কে সম্যক ধারণা রাখেন এবং তাদের সমস্যা যথাযথভাবে তুলে ধরতে পারেন। তাঁর মাধ্যমেই আমি বাংলাদেশি আমেরিকানদের সান্নিধ্যে আসতে পেরেছি। তিনি মোর্শেদ আলমের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন। মোর্শেদ আলমের দীর্ঘদিনের সুহৃদ তথা ফ্রেন্ডস এন্ড ফ্যামিলি আয়োজিত অনুষ্ঠানে স্টেট সিনেটর জন ল্যু বলেন, দীর্ঘদিন ধরে তাঁর সঙ্গে আমার কাজ করার অভিজ্ঞতা আছে। তিনি সত্যিকারের অভিবাসী নেতা। নিউইয়র্ক স্টেট অ্যাসেম্বলিম্যান ও ডিস্ট্রিক্ট লিডার ডেভিড ওয়েপ্রিন বলেন, মোর্শেদ আলম পরীক্ষিত ডেমোক্রেট নেতা।

প্রবীণ ডেমোক্রেট নেতা মোর্শেদ আলমের সম্মানে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অতিথি ও আয়োজকরা।

এ সময় তিনি মোর্শেদ আলমের হাতে স্টেটের সম্মাননা পত্র তুলে দেন। অসীম সাহা ও আহনাফ আলমের প্রাণবন্ত উপস্থাপনায় এ অনুষ্ঠান শুরু হয় বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীতের মধ্য দিয়ে। স্বাগত বক্তব্য দেন নারী নেত্রী অধ্যাপিকা হুসনে আরা। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন অ্যাডভোকেট রুবাইয়া রহমান। পরে মোর্শেদ আলমের রাজনৈতিক জীবনের ওপর আলোকপাত করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সউদ চৌধুরী, প্রবীণ ডেমোক্রেট নেতা মাফ মিসবাহ উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা খান মেরাজ, বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফখরুল আলম, ডিস্ট্রিক্ট লিডার মার্থা টেইলর, কমিউনিটি লিডার নাসির আলী খান পল, বাংলাদেশ সোসাইটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুর রহিম হাওলাদার, সোসাইটির নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন, সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোহাম্মদ আলী, শহীদ পরিবারের সন্তান ফাহিম রেজা নূর, মাজেদা উদ্দীন, খোরশেদ আলম, শেখ আখতারুল ইসলাম, মুজিবুর রহমান, বিশিষ্ট রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী মো. আনোয়ার হোসেন, শিল্পকলা একাডেমি ইউএসএ’র প্রেসিডেন্ট মনিকা রায় চৌধুরী, মোর্শেদ আলমের সহধর্মিনী ও নারী নেত্রী সালেহা মোর্শেদ, রিনা সাহা, কমিউনিটি লিডার ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ফখরুল ইসলাম দেলোয়ার, নবনির্বাচিত জুডিশিয়াল ডেলিগেট জেমি কাজী, মোর্শেদ আলম তনয়া নুসরাত আলম ও মাহতাব খান, স্টেট কমিটিওম্যান জামিলা উদ্দিন, অ্যাসাল সেক্রেটারি করিম চৌধুরী, মাসুদুর রহমান, নতুন প্রজন্মের মুশরাত শাহীন প্রমুখ। অনুষ্ঠানের অন্যতম ছিলেন আহনাফ আলম, মনিকা রায় চৌধুরী, জয় চৌধুরী, মো. আনোয়ার হোসেন, সালমা ফেরদৌস, মোহাম্মদ আলী, মিলন রহমান, রীনা সাহা, রুবাইয়া রহমান, গালিব রহমান প্রমুখ।
সবশেষে ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নৈশভোজ।

অনুষ্ঠানে মোর্শেদ আলমকে প্রল্লেমেশন প্রদান করেন কংগ্রেস ওম্যান গ্রেস মেং।